পুলিশের ওপর আক্রমণ ছিল পূর্ব পরিকল্পিত : ডিএমপি কমিশনার

0
108

নিজস্ব প্রতিবেদক :: ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনার (ডিএমপি) মো. আছাদুজ্জামান মিয়া বলেছেন, রাজধানীর নয়া পল্টনে বিএনপি অফিসের সামনে পুলিশের ওপর অতর্কিত আক্রমষ ছিল পূর্ব পরিকল্পিত।

ডিএমপি কমিশনার আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে ডিএমপি’র সদর দপ্তরে এক অনানুষ্ঠানিক ব্রিফিংকালে সাংবাদিকদের একথা বলেন।
ডিএমপি কমিশনার বলেন, নয়া পল্টনে পুলিশের ওপর আক্রমণ ও গাড়িতে অগ্নিসংযোগের ঘটনায় ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার ফুটেজ দেখে ৩০ জনকে সনাক্ত করা হয়েছে, বাকিদের সনাক্ত করার কাজ অব্যাহত রয়েছে।
তিনি বলেন, বিএনপি’র কার্যালয়ের সামনে পুলিশের উপর আক্রমনের ঘটনাটি ছিল অনাকাঙ্খিত ও অপ্রত্যাশিত। ঘটনা কিভাবে কেন হয়েছে মিডিয়ার মাধ্যমে দেশসহ বিশ্বের সবাই দেখেছে।
কমিশনার বলেন, এ ব্যাপারে ইতিমধ্যে পুলিশ পল্টন মডেল থানায় ৩টি মামলা দায়ের করেছে, এসব মামলায় মোট ৪৮৮জনকে আসামি করা হয়েছে। এরমধ্যে গতকাল বুধবার ঘটনাস্থল থেকে ৬০ জন এবং পরে আরও ৮জনসহ মোট ৬৮ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।
মামলাগুলো নিরপেক্ষভাবে তদন্ত করার জন্য ডিএমপির গোয়েন্দা বিভাগ ও মতিঝিল ক্রাইম বিভাগের চৌকস অফিসারদের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি।
আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, হামলায় পুলিশের সম্পূর্ণ নতুন দুইটি গাড়ি ভস্মীভূত হয়েছে এবং ৫ জন অফিসারসহ আহত হয়েছেন ২৩ জন পুলিশ সদস্য। তারা সবাই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তাদেরকে বাঁশ দিয়ে, লাঠি দিয়ে পিটানো হয়েছে। পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট পাটকেল ছোঁড়া হয়েছে।
কমিশনার বলেন- গত ৭ দিন ধরে বিএনপি নমিনেশন পেপার ক্রয় এবং জমা দেয়ার কাজ সুশৃংঙ্খলভাবে ও আনন্দমুখর পরিবেশে হয়েছে। বুধবার বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশিরা বড় বড় মিছিল নিয়ে, পদ শোভাযাত্রা ও বাদ্যযন্ত্র বাজিয়ে পুরো রাস্তা দখল করে এসেছে। এর ফলে পশ্চিমে কাকরাইল ও পূর্বে ফকিরাপুল সম্পূর্ণ রাস্তা বন্ধ হয়ে গিয়েছিল।
তিনি বলেন, নির্বাচন আচরণবিধিতে বলা হয়েছে রাস্তা অবরোধ করা যাবে না, পদ শোভাযাত্রা করা যাবে না, বাদ্যযন্ত্র বাজিয়ে জনগণের দুর্ভোগ করা তৈরি করা যাবে না। ওখানে কর্তব্যরত পুলিশ বিএনপি নেতাকর্মীদের অনুরোধ করেছিলেন যেন পুরো রাস্তাটি বন্ধ করে না দেয়া হয়। কেননা শহরের কেন্দ্রস্থল ও পাশেই মতিঝিল, তাই রাস্তা বন্ধ হওয়ায় মানুষের চরম দুর্ভোগ হচ্ছিল। এই অনুরোধ করার প্রেক্ষিতে যখন বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা একটি বড় মিছিল নিয়ে এলেন, তখন পুলিশের এই অনুরোধ নিয়ে বাদানুবাদ শুরু হয়। এক পর্যায়ে কোন কিছু বুঝে উঠার আগেই পুলিশের উপর অতর্কিত আক্রমন করা হয়। আক্রমনে বড় বড় লাঠি ব্যবহার করা হয়েছে। ৪ থেকে ৫ হাত লম্বা লাঠি ব্যবহার করা হয়েছে। তাহলে এ লাঠি এখানে কিভাবে এলো । এ ব্যাপারে আমরা সুনিশ্চিত হয়েছি পুলিশের উপর আক্রমণ ছিল সম্পূর্ণভাবে পূর্বপরিকল্পিত।

Print Friendly, PDF & Email